বিধিনিষেধের মধ্যেও ঢাকার বাতাস ‘খুবই অস্বাস্থ্যকর’
Published : Monday, 12 April, 2021 at 11:53 AM, Count : 567

বর্তমান প্রতিবেদক: চলমান বিধিনিষেধের মধ্যেও সোমবার সকালে বায়ুর মান ‘খুবই অস্বাস্থ্যকর’ পর্যায়ে পৌঁছেছে। এ সময় ঢাকার বায়ুর মান রেকর্ড হয়েছে ২৩৫ পিএম২.৫, যা খুবই অস্বাস্থ্যকর ক্যাটাগরির। নানান ধরনের অসুখে ভোগা ব্যক্তিরা এ সময় গুরুতর অসুস্থ হয়ে যেতে পারেন।
বায়ুর মান শূন্য থেকে ৫০ পিএম২.৫ থাকলে সেটাকে বিশুদ্ধ বায়ু বলা হয়। সোমবার সকাল ৮টায় দ্য ওয়ার্ল্ড এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স প্রজেক্ট (একিউআইসিএন) এসব তথ্য দিয়েছে। একিউআইসিএন এপ্রিলের প্রথম ৮ দিনের গড় বায়ুদূষণের তথ্য প্রকাশ করেছে। তাতে দেখা গেছে, ৬ দিন বায়ুর মান ছিল অস্বাস্থ্যকর (১৫০ থেকে ২০০ পিএম২.৫) এবং দুই দিন ছিল খুবই অস্বাস্থ্যকর (২০১ থেকে ৩০০ পিএম২.৫)। অবশ্য সকাল ৯টার দিকে বায়ুর মানের কিছুটা উন্নতি হয়েছে। একিউআইসিএন বলছে, সকাল ৯টায় ঢাকার বায়ুর মান ১২৭ পিএম২.৫, যা অস্বাস্থ্যকর পর্যায়ের। অর্থাৎ ‘খুবই অস্বাস্থ্যকর’ থেকে ‘অস্বাস্থ্যকর’ পর্যায়ে উন্নতি হয়েছে ১ ঘণ্টার ব্যবধানে। করোনা সংক্রমণ শুরুর পর গত বছর লকডাউন দেয়া হলে মানুষের বাইরে বের হওয়াসহ শিল্প-কলকারখানা বন্ধ হয়। ফলে ওই সময় অতি দূষিত ঢাকার বায়ুর মান বেশ ভালো হয়ে যায়। পাশাপাশি দেশের অন্যান্য অঞ্চলের বায়ুর মানেও উন্নতি ঘটে। তারপর লকডাউন উঠে গেলে ফের দূষিত হতে শুরু করে দেশের বায়ু। সংক্রমণ বাড়ায় প্রায় এক বছর পর ফের দেশে চলাচলে নানান বিধিনিষেধ দিয়েছে সরকার। কিন্তু এতে শিল্প-কলকারখানা বন্ধ হয়নি। চলমান রয়েছে উন্নয়ন কাজও। বন্ধ হয়নি মানুষের বাইরে বের হওয়া। দোকান-পাট, যানবাহনও চলছে সীমিত পরিসরে। ফলে বিধিনিষেধ দিলেও বায়ুর মানে তেমন উন্নতি হয়নি।



« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক ও প্রকাশক: আলহাজ্ব মিজানুর রহমান, উপদেষ্টা সম্পাদক: এ. কে. এম জায়েদ হোসেন খান, নির্বাহী সম্পাদক: নাজমূল হক সরকার।
সম্পাদক ও প্রকাশক কর্তৃক শরীয়তপুর প্রিন্টিং প্রেস, ২৩৪ ফকিরাপুল, ঢাকা থেকে মুদ্রিত।
সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : মুন গ্রুপ, লেভেল-১৭, সানমুন স্টার টাওয়ার ৩৭ দিলকুশা বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত।, ফোন: ০২-৯৫৮৪১২৪-৫, ফ্যাক্স: ৯৫৮৪১২৩
ওয়েবসাইট : www.dailybartoman.com ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Developed & Maintainance by i2soft